• ঢাকা
  • শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ১৬ কার্তিক ১৪২৭
Bangla Bazaar
Bongosoft Ltd.

ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনে ভোট পড়েছে সাড়ে দশ শতাংশ


নিজস্ব প্রতিবেদক | বাংলাবাজার প্রকাশিত: অক্টোবর ১৮, ২০২০, ১২:১২ এএম ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনে ভোট পড়েছে সাড়ে দশ শতাংশ
ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত কাজী মনিরুল ইসলাম মনু। বৈধ ভোটের ৯৩ শতাংশ পড়েছে নৌকার ঘরে৷

তারপরও পৌণে পাঁচ লাখ ভোটারের মধ্যে প্রাপ্ত ভোট মাত্র ৪৫ হাজার ৬৪২৷ যার প্রমাণ ভোটকেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি ছিল হাতেগোণা৷

শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল থেকেই কেন্দ্রে দেখা যায়নি ভোটারদের৷ কোনো কোনো কেন্দ্রে ভোটারের তুলনায় সমর্থকদের সংখ্যা ছিল বেশি৷

মাঠের এ চিত্র স্পষ্ট হলো ফলাফল ঘোষণার পর৷ মাত্র ১০ দশমিক ৪৩ ভোট পড়েছে ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনের৷

'লো স্কোরিং' এ নির্বাচনে বিজয়ী কাজী মনিরুল ইসলাম মনুর সঙ্গে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সালাহ্ উদ্দিন আহমেদের ভোটের ব্যবধান ৪২ হাজার ৭১৬ ভোট৷

কাজী মনিরুল ইসলাম মনুর ৪৫ হাজার ৬৪২ ভোটের বিপরীতে সালাহ্ উদ্দিন আহমেদ পেয়েছেন মাত্র দুই হাজার ৯২৬ ভোট৷

আর বাকি তিন প্রার্থীর মধ্যে জাতীয় পার্টির মীর আব্দুস সবুর লাঙ্গল প্রতীকে পেয়েছেন ৪১৩ ভোট, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির আরিফুর রহমান সুমন মাস্টার আম প্রতীকে পেয়েছেন ১১১ ভোট৷

বাকি প্রার্থী বাংলাদেশ কংগ্রেসের আনছার রহমান শিকদারের ডাব প্রতীকে ভরসা রাখতে পারেননি ৫০ জন ভোটারও৷ তার প্রাপ্ত ভোট ৪৯৷

নিয়ম অনুযায়ী, সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় প্রার্থীকে সরকারি কোষাগারে ২০ হাজার টাকা জামানত হিসেবে জমা দিতে হয়।

যা   ফেরত পেতে ওই আসনের সব ভোটকেন্দ্রে পড়া মোট ভোটের ৮ ভাগের ১ ভাগ পেতে হয়।

কিন্তু বিজয়ী কাজী মনিরুল ইসলাম মনু ছাড়া আর কোনো প্রার্থীর কপালেই মিলবে না জামানতের টাকা৷

শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল নয়টা থেকে বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত আট ঘণ্টা টানা ভোটগ্রহণ হয়৷ ১৮৭টি কেন্দ্রে ৮৬৪টি ভোট কক্ষে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন ভোটাররা।

গত ৬ মে হাবিবুর রহমান মোল্লার মৃত্যুতে ঢাকা-৫ আসন শূন্য হয়। এর পর গত ৩ সেপ্টেম্বর এ আসনে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৪৮, ৪৯, ৫০, ৬০, ৬১, ৬২, ৬৪, ৬৫, ৬৬, ৬৭, ৬৮, ৬৯ ও ৭০ নম্বর ওয়ার্ড (ডেমরা ও মতিঝিল) নিয়ে ঢাকা-৫  আসন গঠিত। এখানে ২ লাখ ৪১ হাজার ৪৬৪ জন পুরুষ এবং ২ লাখ ২৯ হাজার ৬৬৫ জন নারী ভোটার মিলিয়ে মোট ভোটার আছেন ৪ লাখ ৭১ হাজার ১২৯ জন।